• Home
  • Bangla
  • আপনাকে বাঁধাধরা গন্ডির বাইরে ভাবতে উত্সাহ দেয় এমন আটটা উপায়

আপনাকে বাঁধাধরা গন্ডির বাইরে ভাবতে উত্সাহ দেয় এমন আটটা উপায়

আপনাকে বাঁধাধরা গন্ডির বাইরে ভাবতে উত্সাহ দেয় এমন আটটা উপায়

তাহলে আপনাকে কি কাজের জন্য বাঁধাধরা গন্ডির বাইরে ভাবতে বলা হয়েছে? বা, আপনি একটা প্রজেক্টের জন্য সত্যিই একটা নতুন চিন্তা-ভাবনা চেয়েছিলেন? চিন্তা করবেন না! অন্যান্য যেকোনো দক্ষতার মতই, বাঁধাধরা গন্ডির বাইরে ভাবাটাও, অভ্যাসের সঙ্গে আসে।  আমাদের সব সময় বাঁধাধরা গন্ডির বাইরে ভাবতে বলা হয়, কিন্তু এটা আমরা ঠিক কি ভাবে করি? আমরা স্বাভাবিক যে ভাবে জিনিসগুলো দেখি সেটার থেকে কি ভাবে আমরা জিনিসগুলোকে আলাদা ভাবে দেখার ক্ষমতা অর্জন করব? সমস্যার সঙ্গে কি ভাবে সৃজনশীল উপায়ে মোকাবিলা করতে হবে সেটা ভাবুন।  

এখানে আপনার বাঁধাধরা গন্ডির বাইরে ভাবার দক্ষতা বাড়ানোর আটটা উপায় আছে।  প্রত্যেক বারের চেয়ে আরো বেশি করে আপনার চিন্তা-ভাবনাকে বাড়ানোর চেষ্টা করুন।  পরের বার আপনি এমন কোনো পরিস্থিতির সম্মুখীন হলে, যেখানে সবাই জানে কি ভাবে সমাধান করতে হবে, তখন প্রতিভাগুলো কাজে লাগতে পারে।  

অন্য আর একটা ইন্ডাস্ট্রিকে স্টাডি করুন 

একটা লাইব্রেরিতে যান, এবং আপনার নিজেরটা বাদে অন্য আর একটা ইন্ডাস্ট্রির ব্যবসায়িক পত্রিকা তুলে নিন।  লাইব্রেরি থেকে কয়েকটা বই নিয়ে নিন এবং অন্যান্য ইন্ডাস্ট্রিতে কি ভাবে কাজ করা হয় সেগুলো শিখুন।  আপনি এটা দেখতেও পারেন যে অন্যান্য ইন্ডাস্ট্রির লোকেরাও একইরকমের সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন, এবং তারা সেইগুলোর সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য সত্যিই আলাদা আলাদা উপায় বের করেছেন।  

আপনার ইন্ডাস্ট্রি এবং নতুনটার মধ্যে যোগাযোগ খুঁজুন।  এটা করে, আপনি ভবিষ্যতের উদ্ভাবনী পার্টনারশীপের ভিত্তি খুঁজে পেতে পারেন।  এছাড়া, বাড়তি জ্ঞান অর্জন করা সব সময়ে বেশি ভাল।  

নিজের জায়গা পাল্টান 

সৃজনশীলতা উত্পন্ন করার জন্য আপনার সাধারণ কর্মসূচি থেকে দূরে যাওয়া প্রয়োজন।  সফল এবং সৃজনশীল চিন্তাবিদদের মধ্যে আপনার কর্মসূচির পরিবর্তন করার ধারণাটা একটা সাধারণ ব্যাপার।  এটার মানে হলো হয় আপনি সৃজনশীলতা কেন্দ্রিক একটা নির্দিষ্ট নিয়ম তৈরী করুন, বা আপনি সহজ ভাবে একটা ব্রেক নেওয়ার উপায় খুঁজে বের করুন।  

আপনার স্বাভাবিক কর্মসূচি এবং আপনার সৃজনশীলতার সময়ের মাঝে একটা মানসিক দুরত্ব তৈরী করুন।  হাঁটতে যান বা সকালে সূর্য ওঠা দেখুন, বা আপনি পছন্দ করেন এরকম জিনিসে নিজেকে ডুবিয়ে দিন।  এটা আপনার সৃজনশীলতাকে বাড়াতে এবং ওই উদ্ভাবনী রস উপচে পড়তে সাহায্য করে।  

একটা ক্লাস করুন 

একটা নতুন বিষয় শেখা আপনাকে কিছু নতুন দক্ষতা শেখাবে।  এটা আপনাকে আপনার প্রত্যেকদিনের জীবনের বিভিন্ন বিষয়/ দিকগুলোকে একটা নতুন উপায়ে দেখার জন্য এবং সেগুলোর মানে বের করার জন্য তৈরী করবে।  নতুন কিছু শেখা আপনাকে আপনার আগে থেকেই কি ভাবে করতে হবে জানা জিনিসগুলোকে সম্পূর্ণ আলাদা দিক থেকে দেখতে সাহায্য করতে পারে।  

এটা পরিবর্তে, সমস্যাকে কি ভাবে দেখতে হবে এবং আপনি যে যে সম্ভব্য সমাধান নিয়ে আসতে পারেন সেটার ব্যপ্তি, দুটোই বাড়াতে আপনাকে সাহায্য করবে।  

ব্রেনস্টর্ম 

বিভিন্ন ধারণা তুলে ধরা, বিশেষ করে যেগুলো অপ্রচলিত সেগুলো কিছু সত্যিই ভাল চিন্তা-ভাবনা বেছে নেওয়ার দারুণ কৌশল হতে পারে।  ব্রেনস্টর্মিং আপনাকে আপনার চিন্তা-ভাবনা খুলতে সাহায্য করে যাতে আপনি সেই একই পুরনো প্যাটার্নে বা ধরণে না আটকে থাকেন।  

কি সহজেই সম্ভব আর কি নয় সেটা নিয়ে ব্রেনস্টর্মিং নয়।  ব্রেনস্টর্মিং করার সময়ে নিজেকে সীমাবদ্ধ করে রাখাটা এড়িয়ে চলবেন।  এটাই সেই সময় যখন সব ধরণের চিন্তা-ভাবনাকে স্বাগত জানানো হয়, সেটা যতই বোকাবোকা বা অকাজের শোনাক ।  

একটা অপরিচিত জনর থেকে একটা উপন্যাস পড়ুন 

আমাদের সমাজে পড়া হলো সবচেয়ে ভাল মানসিক উদ্দীপকদের মধ্যে একটা।  কিন্তু এতে আটকে যাওয়ায়ও একই রকম সহজ।  এমন কিছু পড়ার চেষ্টা করবেন যেটা আপনি কখনই চেষ্টা করে দেখেননি।  আপনি যদি লিটারারি ফিকশন পড়েন, তাহলে একটা রহস্য বা বৈজ্ঞানিক ফিকশন পড়ে দেখুন।  

গল্পটাতে এবং লেখক কি ভাবে সমস্যাগুলোর সঙ্গে মোকাবিলা করেন সেটাতে মন দেবেন।  আপনি যদি প্রচুর হার্ড-বয়েলড বা উগ্র ডিটেকটিভ উপন্যাস পড়ে থাকেন, তাহলে একটা রোম্যান্টিক বই পড়ে দেখুন।  

সমস্যাটার ব্যাপারে আবার চিন্তাভাবনা তৈরী করুন 

সমস্যাটাকে একটা নতুন ভাবে দেখা থেকেই সৃজনশীল সমাধান এবং চিন্তা-ভাবনা খোঁজার একটা অংশ শাখা মেলে।  কোনো কিছুর দিকে নতুন ভাবে দেখা আপনাকে একটা নতুন সম্ভব সমাধানের দিকে দেখতে দেয়, যেটা হয়ত আপনি এমনিতে দেখতেন না।  

সমস্যাটাকে উল্টে দিয়ে এটা করা যেতে পারে।  এটা সত্যিই করা যেতে পারে বা রূপকভাবে, কোনো আকৃতিকে উল্টো করে দিলে সেটা আঁকা সহজ হয়ে যায়।  মনে রাখবেন, আপনার মস্তিষ্ককে ওখানে কি থাকা উচিত বলে মনে হয় তার চেয়ে এটা তৈরী করার পরিপ্রেক্ষিতে দেখতে হবে।  

দিনে বা জেগে স্বপ্ন দেখা 

অবাক হলেন? হ্যাঁ, দিনে স্বপ্ন দেখা বা কল্পনা করা আপনাকে যোগাযোগ করতে এবং প্যাটার্ন বা ধরণ তৈরী করতে এবং তথ্য মনে করতে সাহায্য করে।  নিজেকে দিনে স্বপ্ন দেখার সময় দিন।  টি.ভি, কম্পিউটার এবং আপনার ফোনটা বন্ধ করে দিন।  আপনি যদি সমানে অমনোযোগী হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার মস্তিষ্কের জন্য আরাম করা এবং যোগাযোগ খুঁজে বের করা অনেক কঠিন হয়ে যাবে।  

বেশিরভাগ, আপনি হাঁটার সময়ে বা স্নান করার সময়ে জেগে স্বপ্ন দেখেন।  এই কারণেই হাঁটতে যাওয়া বা স্নান করা সৃজনশীল চিন্তা-ভাবনার উপকার করতে পারে।  বিছানা থেকে ওঠার আগে, বা রাতে ঘুমনোর আগে জেগে স্বপ্ন দেখা অনেক ভাবে সাহায্য করে।  

মাপকাঠি/গুণাবলী তৈরী করুন 

আপনার যদি বাঁধাধরা গন্ডির বাইরে ভাবতে সমস্যা হয়, তাহলে এটা আপনার নিজেকে কিছু সাধারণ মাপকাঠি/গুণাবলী দেওয়ার সময়।  এটা মনে হতে পারে যে এটা সৃজনশীলতায় বাঁধা দেবে, কিন্তু আপনি যদি সঠিক মাপকাঠি ঠিক করেন তাহলে আপনি দেখবেন যে এটা আসলে আপনার জন্য রাস্তা খুলে দেয়।  

আপনার কাছে বাঁধাধরা গন্ডির বাইরে ভাবার মানে কি এবং আপনি এটা কি ভাবে আপনার টীমের সঙ্গে কাজে লাগান? team@ezjobs.io -তে আমাদের বলুন।  

এজজবস অ্যাপটা একটা বিনামূল্যে-ব্যবহার-করার চাকরির প্ল্যাটফর্ম যেটা নিয়োগকারীদের এবং প্রার্থীদের স্থানীয়, আংশিক-সময়ের এবং সীজনাল চাকরির জন্য যোগাযোগ করায়। আপনি আজকেই এজজবস অ্যাপটা ডাউনলোড করে তক্ষুনি আপনার চারপাশে চাকরি খুঁজে পেতে পারেন। 

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *